স্বামী সোহেলকে জবাই করে হত্যার পর দুই সন্তানকে নিয়ে পালিয়ে যান ঘাতক স্ত্রী শিউলি…

নোয়াখালী নিউজ সারাদেশের খবর
Spread the love


ফেনীতে এক দুবাইপ্রবাসীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ শুক্রবার সকালে সুফি সদর উদ্দিন সড়কের (নাজির রোড) একটি ফ্ল্যাট থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত ওই প্রবাসীর নাম মো. সোহেল (৩৫)। তিনি কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার গুনবতী ইউনিয়নের খাটরা গ্রামের আবুল কালামের ছেলে। ঘটনার পর থেকেই নিহত সোহেলের স্ত্রী শিউলি আক্তার পলাতক।এদিকে নিহতের স্বজনরা আহাজারি
করতে করতে গণমাধ্যম কর্মীদের বলেন সোহেলের সাথে বনিবনা না হলে সে(স্ত্রী) তাকে ছেড়ে চলে যেতে পারত কিন্তু তাকে হত্যা করলো কেন?

নিহতের চাচাতো ভাই ফাহাদ উদ্দিন মাহমুদ জানান, সোহেল প্রায় ১২ বছর ধরে দুবাই আছেন। ৮ বছর আগে দেশে ফিরে তিনি চৌদ্দগ্রাম উপজেলার জগন্নাথ ইউনিয়নের খাজুরিয়া গ্রামের শিউলি আক্তারকে বিয়ে করেন। এরপর তিনি আবার দুবাই চলে যান। বছর দেড়েক আগে ফেনীর সুফি সদর উদ্দিন সড়কে চৌধুরী সুলতানা ম্যানসন নামের একটি বাড়ির ষষ্ঠ তলার একটি ফ্ল্যাট ভাড়া নেন তাঁরা।

সোহেল দুবাই থাকায় তাঁর স্ত্রী শিউলি ও দুই সন্তান রিহান (৭) ও জান্নাতকে (৪) নিয়ে ওই বাসায় থাকতেন। দেড় মাস আগে ছুটিতে দেশে আসেন সোহেল। কিন্তু কী কারণে হত্যার ঘটনা ঘটতে পারে, সে সম্পর্কে কিছু জানাতে পারেননি ফাহাদ উদ্দিন মাহমুদ।

পুলিশ ও স্থানীয় ব্যক্তিরা জানান, গতকাল রাতে বাবার বাড়ি যাওয়ার কথা বলে দুই শিশুসন্তানকে নিয়ে বাসা থেকে বের হয়ে যান শিউলি। এরপর আজ শুক্রবার সকালে স্থানীয় ব্যক্তিদের মাধ্যমে সোহেল হত্যার খবর পায় পুলিশ।

পরে বেলা ১১টার দিকে ফেনী মডেল থানা–পুলিশ ফেনীর সুফি সদর উদ্দিন সড়কে চৌধুরী সুলতানা ম্যানসনের ষষ্ঠ তলার ওই ফ্ল্যাট থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ফেনী ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

ফেনী সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নিজাম উদ্দিন প্রবাসী সোহেলের গলাকাটা লাশ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি ফেনী হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার পর থেকে নিহতের স্ত্রী পলাতক। পালানোর সময় নিহতের স্ত্রী তাঁর দুই সন্তানকেও সঙ্গে নিয়ে গেছেন বলে জানা গেছে। এই হত্যাকাণ্ড কেন ঘটেছে, সেটি তদন্ত ছাড়া এখন কিছু বলা যাচ্ছে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *